আবারো মর্মান্তিক দুর্ঘটনা দুর্গাপুর এক্সপ্রেসওয়েতে

accident_durgapur_family_death
দুর্ঘটনা কবলিত গাড়িটি

দুর্গাপুর নিউজ ডেস্ক, ২৯ এপ্রিল ২০১৭ – আবার মর্মান্তিক দুর্ঘটনা, ২ নম্বর জাতীয় সড়কের উপরে। মারা গেলেন দুর্গাপুরের দুর্গাপুর ইস্পাত নগরীর এ-জোন রানাপ্রতাপের একই পরিবারের চারজন সদস্য। ঘটনায় আহত ঐ একই পরিবারের অন্যতম সদস্য, জীবন মুখার্জী-কে (৫২) প্রথমে দুর্গাপুরের একটি বেসরকারী হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয় ও পরে কলকাতার একটি বেসরকারী হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়।

শুক্রবার বাঁকুড়ার ঝাঁটিপাহাড়ি থেকে চার চাকার গাড়িতে করে ফিরছিলেন জীবন মুখার্জী ও তাঁর পরিবার। তাদের গাড়িটি রাত ১২টা নাগাদ অন্ডালের কাজোরা টপলাইনের কাছে এলে জাতীয় সড়কের ওপর দাঁড়িয়ে থাকা একটি ট্রেলারের পেছনে প্রথমে ধাক্কা মারে। সেই মুহুর্তে পেছন থেকে একটি ট্রাক এসে তাদের গাড়িটিকে পেছনে থেকে ধাক্কা মারলে চিঁড়ে চ্যাপ্টা হয়ে যায় গাড়িটি। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় জীবনবাবুর স্ত্রী কনিকা মুখার্জী, মা ভক্তি মুখার্জী, ভাই মিলন মুখার্জী ও ছেলে সৌরেন মুখার্জীর।

আহত ব্যাক্তি, জীবন মুখার্জী দুর্গাপুর ইস্পাত কারখানার ব্লাস্ট ফার্নেস-র কাস্ট হাউসের কর্মী। ভাই মিলন মুখার্জী আসানসোলের চাঁদা মোড়ে একটি বেসরকারী গাড়ির শো-রুমে চাকরী করতেন। ছেলে সৌরেন মুখার্জী দুর্গাপুরের হেমশীলা মডেল স্কুলের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র ছিল। জীবন ও মিলন, উভয়েই দুর্গাপুর ইস্পাত নগরীর অত্যন্ত পরিচিত দুই মুখ। এভাবে প্রায় গোটা পরিবারের একইসাথে অকাল মৃত্যুতে সমস্ত দুর্গাপুর জুড়ে নেমে এসেছে শোকের ছায়া।

বাঁকুড়ায় একটি বিয়ে বাড়ি থেকে ফেরার সময় ঘটে এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা। গাড়ীটি জীবনবাবুর ভাই চালাচ্ছিলেন বলে জানা গেছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ করা যেতে পারে, যে এই বুধবার (২৬ এপ্রিল) পূর্ব বর্ধমানের বামবটতলায় দুর্গাপুর এক্সপ্রেসওয়ে ধরে সাইকেলে যাচ্ছিলেন এক দম্পতি। উল্টো দিক থেকে আসা ট্রাক ধাক্কা মারে তাঁদের। মারা যান সন্ধ্যা চৌধুরী (৪২)। জখম হন তাঁর স্বামী কৃষ্ণনাথ চৌধুরী। সাইকেলের ঠিক পিছনেই ছিল একটি মোটরবাইক। আহত হন, মোটরবাইক আরোহীও।

গত সোমবার (২৪ এপ্রিল) আসানসোলের ট্র্যাফিক পুলিশ বিভাগের ওসি শশীভূষণ তিওয়ারির (৪৭) দুর্গাপুরের ডিভিসি মোড়ে ২ নম্বর জাতীয় সড়কে মোটরবাইক থেকে পড়ে গেলে পিছন থেকে আসা একটি ট্রাক চাপা দিয়ে পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় তার। তিনি বসেছিলেন তার ছেলের মোটরবাইকের পিছনে।

বারংবার এই ধরনের দুর্ঘটনায় এখন কপালে ভাঁজ পরতে শুরু করেছে জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষ থেকে শুরু করে পুলিশ প্রশাসনের।

Likes(0)Dislikes(0)
Related Posts Plugin for WordPress, Blogger...

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*